1. admin@idealmediabd.com : Sultan Mahmud : Sultan Mahmud
  2. abutalharayhan62@gmail.com : Abu Talha Rayhan : Abu Talha Rayhan
  3. nazimmahmud262@gmail.com : Nazim Mahmud : Nazim Mahmud
  4. tufaelatik@gmail.com : Tufayel Atik : Tufayel Atik
কামিল বুজুর্গ শায়খ লক্ষিপুরি - ইত্তেহাদ টাইমস
সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ০৫:৪৩ অপরাহ্ন

কামিল বুজুর্গ শায়খ লক্ষিপুরি

মাওলানা জুনায়েদ শামসী
  • প্রকাশটাইম: শুক্রবার, ২৯ জুলাই, ২০২২
আল্লামা লক্ষিপুরি

চেহারায় নুরের ঝলক। দেখতে ধবধবে সাদা। ছোটো আকৃতির আখিঁযুগল । কালো-সাদা মিশ্রিত আখিঁপুট। দর্শনেন্দ্রীয়-এর চারিপাশে কালো লোম এবং তার নীচে কালো একটি তিল; যা তাঁর চেহারার সৌন্দর্য আরও বর্ধিত করে। দাড়ি বক্ষ পর্যন্ত লম্বা। দাড়িতে দৃষ্টি পড়লে মনে প্রেম জাগে। সুন্নতে রাসুলের অনুসরণ করে কর্তন করা ধবধবে সাদা রঙের চুল তাঁর চেহারাকে আরও ফুটিয়ে তোলে। তাঁকে পুরোপুরি আঁকা হয়তো কঠিন। সবমিলিয়ে শায়খের চেহারার দিকে অপলক দৃষ্টিতে তাকালে চোখ সরানো যায় না। কত মানুষ তাঁর চেহারার প্রেমে পড়ে বসে আছে। আমি নিজেই যখন তাঁর চেহারার দিকে দৃষ্টি দিই ; মনের অজান্তে চেয়ে থাকি অনেক্ষণ। চোখ এড়িয়ে নিতে কষ্ট হয়। তাকিয়ে তাকি সারাক্ষণ। চেহারার প্রেমে মুগ্ধতা আসে মনে-মননে। আমি কতদিন বসেছি তার চেহারা অঙ্কণ করবো ; পারিনি পুরোপুরি আঁকতে।


১৯২৭ খ্রিস্টাব্দে সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার লক্ষিপুর গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে বাবা-মায়ের কোল আলোকিত করে এ- পৃথিবীতে আগমন করেছিলেন তিনি। পিতা মাওলানা ইদ্রিস সাহেব পুত্রের নাম রেখেছিলেন মুহাম্মদ। সে সময়ই তিনি তাঁর পুত্রকে দীনের তরে উৎসর্গ করেছিলেন। ছোট্ট মুহাম্মাদ বড় হয়ে দারুল উলুম জামেয়ায় পড়াশোনা সমাপন করে যোগদেন শায়খুল ইসলাম মুশাহিদ সিলেটির সান্নিধ্যে। শিক্ষকতার ইবতিদা করেন দারুল উলুম থেকেই। মাঝে পাঁচবসন্ত কোম্পানীগঞ্জে থাকার পর আবারও প্রত্যাবর্তন করেন দারুল উলুম-এ।

এ-থেকে পুনরায় ইবতিদা। আজ তিনি শাহি মসনদে বসে পুরো এলাকার নেতৃত্ব দিচ্ছেন৷ তিনি শায়খুল ইসলাম আল্লামা মুশাহিদ সিলেটির শিষ্য এবং জামাতা। তাঁর কাছ থেকে দারস গ্রহণ করে বিভিন্ন জায়গায় হাদিসের মসনদ আলোকময় করে আছেন অনেক প্রতিযশা বুজুর্গ আলেমেদীনরা। তিনি ওলিয়ে কামেল ৷ জীবনের প্রথম দিকো ধবল রোগে আক্রান্ত ছিলেন তিনি। কিন্তু আল্লাহ যে তাঁর অলৌকিকতা প্রকাশ করেন তাঁর প্রিয় বান্দাদের উপর, সেই অলৌকিকতা প্রকাশ পেলো আল্লামা লক্ষিপুরি হাফিযাহুল্লাহ -এর শরীরে। ধবধবে সাদা মানুষটি আজ আর ধবল রোগী নয়। ১৯৮২ সালে মহান আল্লাহর আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে হজ্বে গিয়েছিলেন তিনি। তখন তিনি আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করেছিলেন,’হে আল্লাহ, তুমি সাদা রঙয়ের সৃষ্টিকর্তা এবং কালো রঙয়ের ও সৃষ্টিকর্তা। হে মনিব, আমার সমস্ত শরীর কালো করে দাও না হয় সাদা করে দাও।’ আল্লাহ তাঁর প্রিয় বান্দার দুআ কবুল করেছেন। সমস্ত শরীর সাদা করে দিলেন। হজ্ব থেকে আসার পর তাঁকে কেউ চিনতেই পারেন নি। আগের লক্ষিপুরি আর এখনকার লক্ষিপুরি আকাশ-পাতাল ব্যবধান। এখন আর তিনি ধবল রোগী নন। শায়খ কোমল হৃদয়ের অধিকারী একজন জীবন্ত ওলি । শায়খের পরিচয় দেওয়া অনেক কঠিন। শায়খ প্রতিদিন আলোকিত করে বসে থাকেন মুশাহিদি বাগিচার মাঝে। চেহারার নুরানি ঝলক জামিয়া প্রাঙনকে আলকময় করে রাখে। প্রতিদিন প্রতিনিয়ত হাজারো মানুষ কিছুটা সময় শায়খ লক্ষিপুরির সান্নিধ্যে থাকার আকাঙ্ক্ষা এবং শায়খের দিদারের ইচ্ছায় ছুটে আসে দারুল উলুম জামিয়ায়। শায়খের কাছ থেকে একটু ‘ফু’ নেবার জন্য প্রতিদিন হাজারো মানুষ বসে থাকে জামিয়ার আঙিনায়। শায়খের কাছে ভিড়তে কোনো রকম বেগ পেতে হয় না কারো। শায়খের দরজা সবার জন্য উন্মুক্ত। দেখতে সাদা ধবধবে প্রিয় শায়খি ও সনদির হৃদয়টাও যেন একদম সফেদ। বৃদ্ধ বয়সে এসেও শায়খ সিহাহ সিত্তার সর্ব্বোচ্চ কিতাব সহিহ বুখারি শরিফের বরকতময় দারস প্রদান করেন। শায়খের দারসে বসলে অনুধাবন করা যায়,শায়খ কতো বড় মাপের যোগ্যতা সম্পন্ন প্রতিভাবান এক বিরল ব্যক্তিত্ব। শায়খের দারসে বসলে আকাবির আসলাফের দারস- তাদরিসের কথা মনে পড়ে। শায়খ লোভ লালসাহীন সাদাসিধে এক মহান ব্যক্তি। জামাল এবং জালাল উভয় মিজাজের অধিকারী। অন্যায় দীনদ্রোহীদের কারো কাছে মাথানত করার মানসিকতা কখনও আমাদের শায়খকে ঘ্রাস করতে পারে নি। জীবনের একটি আকাঙ্ক্ষা ছিল, শায়খ লক্ষিপুরি -এর কাছ থেকে সনদ গ্রহণ করবো। মহান আল্লাহ আমাদের ইচ্ছা পূর্ণ করেছেন। শায়খ লক্ষিপুরি আকাবির আসলাফের জীবন্ত নমুনা আমাদের আধ্যাত্মিক রাহবার। তাঁর দারস-তাদরিস, ইহতেমামি পরিচালনার তুলনা হয় না। আমাদের শায়খ,আমাদের সনদ। আমরা তাকে ভালোবাসি আমাদের জীবন থেকেও বেশি। প্রিয় শায়খের দীর্ঘজীবন কামনা করি কা’বার মালিকের দরবারে। শায়খ আমাদের জন্য ছাঁয়া হয়ে দীর্ঘকাল বেঁচে থাকবেন, এটাই মাওলার কাছে আমাদের চাওয়া।

লেখক : তরুণ আলেম

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
ইত্তেহাদুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন-এর একটি প্রতিষ্ঠান copyright 2020: ittehadtimes24.com  
Theme Customized BY MD Maruf Zakir