1. admin@idealmediabd.com : Sultan Mahmud : Sultan Mahmud
  2. abutalharayhan62@gmail.com : Abu Talha Rayhan : Abu Talha Rayhan
  3. nazimmahmud262@gmail.com : Nazim Mahmud : Nazim Mahmud
  4. tufaelatik@gmail.com : Tufayel Atik : Tufayel Atik
কুরবানির প্রকৃত ইতিহাস - ইত্তেহাদ টাইমস
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১১:২৩ পূর্বাহ্ন

কুরবানির প্রকৃত ইতিহাস

নাজমুল হাসান সাকিব
  • প্রকাশটাইম: রবিবার, ১৮ জুলাই, ২০২১

আল্লাহ্ তায়ালা পবিত্র কুরআনুল কারীমের ২৩নং পারায় সূরা সাফফাত এর ১০২নং আয়াত থেকে ধারাবাহিক ১০৮ আয়াত পর্যন্ত কুরবানির প্রকৃত ইতিহাস বর্ণনা করে বলেন, ‘অতঃপর যখন হযরত ইসমাইল আ. তার পিতার সঙ্গে কাজ করার মতো বয়সে উপনীত হলো তখন হযরত ইবরাহীম আ. বলেন, হে বৎস! আমি স্বপ্নে তোমাকে জবাই  করতে দেখেছি। এতে তোমার অভিমত কী?তিনি বললেন, হে আমার পিতা! আপনি যা আদিষ্ট হয়েছেন তা করুন। আল্লাহর ইচ্ছায় আপনি আমাকে ধৈর্যশীলদের কাতারে পাবেন। যখন তারা উভয়ে আনুগত্য প্রকাশ করল এবং হযরত ইবরাহীম আ. তার পুত্রকে কাত করে শোয়ালেন। তখন আমি তাকে আহবান করলাম, হে ইবরাহীম! তুমি তো স্বপ্ন সত্যিই পালন করলে। এভাবেই আমি সৎকর্মপরায়ণদেরকে পুরস্কৃত করে থাকি।নিশ্চয়ই এটা ছিল এক স্পষ্ট পরীক্ষা। আমি তাকে মুক্ত করলাম এক কুরবানির বিনিময়ে। আমি ইহা পরবর্তীদের স্মরণে রেখেছি।’মুফাসসিরগণ লিখেন, ঐসময় হযরত ইসমাইল আ. এর বয়স ছিল ১৩ বছর। কেউ কেউ বলেন, তখন মাত্র তিনি “বালেগ” হয়েছিলেন। ( তাফসীরে মাযহারী)।প্রকৃত ইতিহাস বর্ণনা করতে গিয়ে অনেকেই অবান্তর ভিত্তিহীন কথা লিপিবদ্ধ করেন। আল্লাহ সবাইকে অযাচিত সকল প্রকার কিচ্ছা- কাহিনী থেকে বিমুখ রাখুক। সঠিক দিন সবার মাঝে পৌঁছে যাক।কুরআনি বর্ণনা অনুযায়ী ছেলে যখন বাবার সাথে চলার মতো বয়সে উপনীত হয়ে বাবার সঙ্গে চলতে লাগলেন,একদিন হযরত ইবরাহীম আ. বললেন, আমি স্বপ্নে তোমাকে জবাই করতে দেখেছি। কোন কোন বর্ণনায় এসেছে, স্বপ্নটি হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালাম ধারাবাহিকভাবে তিনবার দেখেছেন। (কুরতুবী) ।একথা সুস্পষ্ট যে নবীগণের স্বপ্ন ওহী। যা  সরাসরি আল্লাহর পক্ষ থেকে ছিল। এ ভিত্তিতে স্বপ্নের মতলব হবে, আল্লাহ তা’আলার পক্ষ থেকে হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালামকে এই হুকুম দেয়া হয়েছে যে, আপন ছেলেকে কুরবানি করো। অতঃপর ইবরাহীম আলাইহিস সালাম আল্লাহর আদেশ স্বীয় মাথা নত করে পরিপূর্ণ বাস্তবায়ন করেন। এতে কোনো কমতি করেননি (তাফসীরে কাবীর)।হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সাল্লাম যখন স্বপ্নের কথা স্বীয় ছেলে হযরত ইসমাইল আলাইহিস সালামকে বললেন, তৎক্ষণাত ইনশাআল্লাহ বলে আল্লাহর হুকুমের বাস্তবায়ন করতে বলেন। পরিপূর্ণ আল্লাহর আদর্শের প্রতি শ্রদ্ধা করতঃ সম্মতি প্রকাশ করেন। আপনি যা আদিষ্ট হয়েছেন তা করুন। আমাকে ধৈর্যশীলদের মাঝে পাবেন। বস্তুত ইবরাহিম আ. ছেলের সামনে কোন শর’য়ী দলিল পেশ করেন নি। শুধু স্বপ্নের কথা ব্যক্ত করেছেন। কিন্তু ইসমাইল আলাইহিস সালাম বুঝে গেলেন নবীদের স্বপ্ন ওহী। আর এ স্বপ্ন’ই স্বয়ং আল্লাহ তায়ালার একটি আদেশের নমুনা।অতঃপর বাবা যখন জবাই করার জন্য আর ছেলে জবাই হওয়ার ইচ্ছায় কুরবানি করার স্থানে পৌঁছলেন, কোন কোন গ্রন্থে আছে বাবা ছেলেকে নিয়ে যখন আল্লাহর হুকুম পালনে রওয়ানা হলেন শয়তান তখন পেছন থেকে ধোঁকা দেওয়ার চেষ্টা করলে হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালাম তিনবার শয়তানকে কংকর নিক্ষেপ করেন। এতে করে অভিশপ্ত শয়তান পলায়ন করে। আজপর্যন্ত মিনায় ঐতিহাসিক কাহিনীর স্বরণার্থে তিনটি “জামরায়” শয়তানকে কংকর নিক্ষেপ করা হয়। (তাফসীরে রুহুল মাআনী)।ময়দানে পৌঁছার পর হযরত ইসমাইল আলাইহিস সালাম পিতাকে বললেন, আব্বাজান জবাই করার পূর্বেই আমাকে ভালো করে বেঁধে নিন যেন আমি বেশি নড়াচড়া না করি এবং আপনার কাপড় আমার থেকে উঠিয়ে রাখুন যেন আমার রক্ত আপনারা জামায না লাগে। এতে আপনার ভীষণ চিন্তা লাগতে পারে এবং আপনার ছুরি ভালো করে ধার করে নিন যেন জবাই তাড়াতাড়ি হয় এবং খুব সহজেই আমার দম বের হয়ে যায়। কেননা মৃত্যু বড় কঠিন জিনিস। অতঃপর যখন আমার মায়ের কাছে ফিরে যাবেন তখন আমার সালাম জানাবেন। আপনি চাইলে আমার জামাটি আম্মুর কাছে নিয়ে যেতে পারেন, হতে পারে এর দ্বারা তার একটু শান্তনা হতে পারে। একমাত্র সন্তানের পক্ষ থেকে এ সমস্ত কথা শুনে কোন বাবা কি পারবে স্থির থাকতে? অথচ ইবরাহিম আলাইহিস সালাম ধৈর্যের পাহাড় হয়ে জবাব দিলেন। বেটা! আল্লাহর হুকুম পালনে তুমি আমাকে কতই না সাহায্য করলে।  এই বলে বাবা ছেলেকে চুমু খেলেন অতঃপর চোখ বেঁধে দিলেন।অতঃপর যখন ইব্রাহিম আ. ছুরি চালানো শুরু করেন তখন আল্লাহ্ তাআলা বেহেশত থেকে একটি ধুম্বা পাঠিয়ে হযরত ইসমাইল আলাইহিস সালামকে মুক্ত করে দিলেন এবং স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা ঘোষণা করলেন, তুমি তো স্বপ্ন সত্যিই পালন করলে। এছিল কুরবানীর প্রকৃত ইতিহাস। ঐতিহাসিক ঐঘটনার স্মরণার্থে আল্লাহ তায়ালা পরবর্তী সকল মানবের উপর কুরবানির বিধান আরোপ করেন। আল্লাহ তাআলা বলেন, “আমি ইহা পরবর্তীদের স্মরণে রেখেছি।”

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
ইত্তেহাদুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন-এর একটি প্রতিষ্ঠান copyright 2020: ittehadtimes24.com  
Theme Customized BY MD Maruf Zakir