1. admin@idealmediabd.com : Sultan Mahmud : Sultan Mahmud
  2. abutalharayhan62@gmail.com : Abu Talha Rayhan : Abu Talha Rayhan
  3. nazimmahmud262@gmail.com : Nazim Mahmud : Nazim Mahmud
  4. tufaelatik@gmail.com : Tufayel Atik : Tufayel Atik
জীবন : অপ্রত্যাশিত যার সব-ই - ইত্তেহাদ টাইমস
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০১:৫৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সংস্থা বাংলাদেশের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত বৃটেনের ইপসুইচে জাতীয় সীরাত কনফারেন্স ২০২১ অনুষ্ঠিত কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে কুরআন অবমাননাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে : হেফাজত ভারতের আসাম রাজ্যে সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায়ের ওপর হামলা ও নিপীড়ন বন্ধ করতে হবে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলো মহানবী (স.)-এর ব্যঙ্গচিত্র আঁকা সেই শিল্পী জোট রাজনীতি সমাপ্তি; কিছু প্রশ্ন : শেখ ফজলুল করীম মারুফ প্রয়োজনে কিংবা অপ্রয়োজনে ক্রেতা হয়ে যান তাদের দ্বিতীয় ধাপে ৮৪৮ ইউনিয়নে নির্বাচন ১১ নভেম্বর ৭৫-এ পা রাখলেন শেখ হাসিনা : অকুতোভয় মানসিকতাই যার দেশ গড়ার শক্তি কানাইঘাট দিঘীরপাড় ইউপিতে ভিজিটির চাল বিতরণ

জীবন : অপ্রত্যাশিত যার সব-ই

উবাইদুল্লাহ বিন জাফর
  • প্রকাশটাইম: রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ফজরের সালাত শেষ করে মসজিদ থেকে বের হলাম। চিৎকার-চেঁচামেচির আওয়াজ কানে এলো। শিহাব বলল, ভাই চলেন দেইক্কা আসি। আমি বললাম — কি দরকার! আচ্ছা চলো দেখে আসি।

সামনে গলিটা একটা মোড় নিয়েছে। সেটা ঘুরলাম। সামনে কিছু মানুষের জটলা। একজন মহিলা আহাজারি করছে। ভেবেছিলাম মারামারি হয়েছে। ঢাকা শহরে কোথায় কে মার খায় আর কারা মারে তার কোনো হদিশ নেই। সেদিন বিকেলে একটি নির্জন জায়গায় বসে মোবাইল টাসছিলাম। হঠাৎ এক তরুণ আসলো। হাতে লাঠি। আমার সামনে বসা ছেলেকে বলল, ‘এই! উবাইদুল্লাহ কোই রে! ওরে পাইলে আইজ এক বাড়ি দিয়া মাথা ফাটায় ফেলবো।’ শুনে আমার রক্ত গরম হয়ে গেলো। পরে বুঝলাম যে আমি না। অন্য কেউ। কিন্তু এখানে সেরকম কিছু ঘটে নি। লোকমুখে শুনলাম তার ছেলে বাইক এক্সিডেন্ট করেছে। অবস্থা গুরুতর। হাসপাতালে ভর্তি।

বেলা দুপুর বারোটা। স্থান— যাত্রাবাড়ী চৌ-রাস্তা। খালেদ ভাইয়ের পেছন পেছন হাঁটছি। রোদের আজ খুব তেজ। ঘেমে নেয়ে যাচ্ছি। হাঁটতে হাঁটতে পৌঁছলাম ‘ সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস’ এ। একটি সাময়িকীয়ে সেপ্টেম্বর সংখ্যায় লেখা পাঠিয়েছিলাম। সেটা‌ আনতে। পেলাম না। ওরা বলল, ‘ আপনার মাল কাজী টাওয়ারে আছে। ওটা আমাদের শাখা। ওখানে যান। ওই তো দক্ষিণে।’

সাময়িকী নিয়ে মাদরাসায় ফিরছি। মনটা খুব আনন্দিত। ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সফলতায় বড় বড় সুখ। সেটা উপভোগ করছি।

বাদ আসর। সালাত আদায় করে মাদ্রাসা ভবন থেকে বের হয়ে আনমনে হাঁটছি রাস্তার কোল ঘেঁষে। হাতে মোবাইল। বিখ্যাত বাটন। সিম্ফনী বি এল ১২০। এগুলো দিয়ে আবার ইন্টারনেট ব্রাউজিং করা বেশ মজার। সবকিছুর ভেতরই একটা সুখ রয়েছে। সেটা‌ খুঁজে নিতে শিখতে হয়। যেমন ছাইয়ের ভেতর আগুন। হঠাৎ মসজিদের‌ মাইকে কী একটা এলান হলো। শুধু শুনতে পেলাম — ‘ ইন্না লিল্লাহি ওয়া‌ ইন্না……’ । বুকটা কেঁপে উঠলো। আজকাল কারো মৃত্যুর খবর শুনলে বুকের ভেতর অস্থির হয়ে যায়। এখনো‌ তাই হলো।

মাগরিবের সালাত আদায় করে মাদরাসায় ফিরছি। গলির মোড় ঘুরতেই সকালের সেই জায়গাটাতে প্রচুর মানুষের ভিড়। সবাই মুসল্লী। আপাতত মসজিদের নয় — জানাযার মুসল্লী। বুকের ভেতর ব্যথাটা জেগে উঠলো। যুবক ছেলের লাশ বাবা কাঁধে করে নিয়ে যাবে গোরস্থানে। বিষয়টা‌ কেমন যেন। অনিয়ম অনিয়ম‌ একটা গন্ধ‌‌ পাওয়া যায়। কেমন যেন অপ্রত্যাশিত। কিন্তু‌ সত্য। মৃত্যু এক অপ্রত্যাশিত সত্যের‌ নাম। কোনো‌ কিছু‌ মানুন আর না মানুন — মৃত্যুকে অস্বীকার করতে পারবেন না।

মাদরাসার পথ ধরলাম। অনেক‌ কিছু ভাবছি। সকালের সেই পৌঢ়‌ মহিলা। যিনি‌ আহাজারী‌ করে কাঁদছিলেন। দিন শেষে ‘মা’ ডাক তিনি আর শুনতে পাবে না। রাতে ঘুমের মাঝে আতকে ওঠবে। বাবা নিরবে চোখের অশ্রু গড়াবে। ওই‌ সময়টায় বেশি‌ মনে পড়বে — যখন ছেলে এসে টাকা চাইতো।

প্রায় মাদরাসার নিকটে এসে পড়েছি। আমার কানে আরেকটি ধ্বনি ধাক্কা খেল। মসজিদের মাইকে এ’লান হচ্ছে —‘ কাজলার পাড় নিবাসী শফিকুল ইসলামের ছেলের ইন্তেকাল হয়েছে। তার নামাজে জানাযা এখনই মালেক সরদার রোডের মাথায় অনুষ্ঠিত হবে।’

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
ইত্তেহাদুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন-এর একটি প্রতিষ্ঠান copyright 2020: ittehadtimes24.com  
Theme Customized BY MD Maruf Zakir