1. admin@idealmediabd.com : Sultan Mahmud : Sultan Mahmud
নবিজির কৈশোর ও আমাদের শিক্ষা। - ইত্তেহাদ টাইমস
মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:৪৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান এবার উন্মুক্ত স্থানে নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী করোনায় দেশে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ৩১ মৃত্যু, শনাক্ত ২২৯৩ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীর রোগমুক্তি কামনায় গোয়াইনঘাট গ্রাম পুলিশের মিলাদ মাহফিল সাঈদুর রহমান লিটনের কবিতা “ফুলকি” দেশের গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় তাখাসসুসের মাদরাসা প্রতিষ্ঠা জরুরি : আল্লামা আলিমুদ্দিন দুর্লভপুরী মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করতে কঠোর হচ্ছে সরকার নাইজেরিয়ায় নামাজের সময় মসজিদে সন্ত্রাসীদের হামলা; নিহত ৫ ভাস্কর্য ও মূর্তির অপব্যাখ্যাকারীরা হক্কানী আলেম হতে পারে না: আল্লামা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী সম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের চক্রান্ত বরদাস্ত করা হবেনা: আল্লামা নূর হোছাইন কাসেমী ব্রাক্ষণবাড়িয়ায় ফজরের নামাজ পড়ানোর সময় ইমামের মৃত্যু

নবিজির কৈশোর ও আমাদের শিক্ষা।

রিপোর্টার নাম:
  • প্রকাশটাইম: বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই, ২০২০

 

মাশহুদ আল হাবীব //

পৃথিবীর মহামানব,জগতের শ্রেষ্ঠ নৃপতি,সায়্যিদুল আম্বিয়া,হযরত মুহাম্মদ সা.। তাঁর মান- মর্যাদা সমস্ত বনী আদমের শিখরে। তাঁর জন্ম, শৈশব, কৈশোর এমনকি পুরো জীবনই ছিল অভিনব,অনুপম অনিন্দ্য। তাঁর শ্রেষ্ঠত্বের অন্ত নেই। নেই প্রশংসার নির্ধারিত পরিসীমা। তিনি সর্বোচ্চ প্রশংসিত।

:

তাঁর জন্ম পৃথিবীর সকল শিশুজন্ম থেকে ব্যতিক্রম,বিস্ময়কর।
তিনি ছোটবেলা থেকেই বেড়ে উঠেছেন অনন্য পদ্ধতিতে। তিনি ছিলেন পৃথিবীর সর্বোচ্চ চরিত্রবান। ছিলেন জীব ও মানব প্রেমে মহীয়ান। মাত্র ছ’বছর বয়সে হারান প্রিয়তমা ‘মা’কে। আবার বছর দুয়েক পর হারান মমতার আধার ‘পিতামহ’কে। এত বিপদের ক্রোড়ে তাঁর মধ্যে বিদ্যমান ছিল পর্বতসম ধৈর্য, শোকর। বিপদে ধৈর্যধারণ, সিদ্ধান্তে অটলতা, ছোট-বড় সবার প্রতি উদারতা ইত্যাদি নবুওয়তী গুণ শৈশব থেকেই ছিল তাঁর মধ্যে বিরাজিত।

:

শৈশবের গণ্ডি পেরিয়ে তিনি এখন কৈশোরে। দিনদিন বড় হচ্ছেন, আর তাঁর তীক্ষ্ণ চোখে প্রত্যক্ষ করছেন সামাজিক অসংগতি । পুরো দুনিয়াজুড়ে যখন চলছিল খুনখারাবি, ধর্ষণ এবং জীবন্ত শিশু দাফন করাসহ অন্যান্য নৃশংসতার উৎসব, তখন তিনি ছিলেন এসব থেকে পবিত্র। সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠা করার জন্য ছিলেন অত্যধিক তৎপর।শ্রম-সাধনা করেছেন অবিরত; এসবের মূলোৎপাটন করতে তিনি ছিলেন বদ্ধপরিকর। যখন ওয়াদা-প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করা ছিল আরবদের নিত্যকার অভ্যাস, তখন তিনি ওয়াদা-প্রতিশ্রুতি পালনে ছিলেন খুবই যত্নবান। তিনি তাঁর মহৎ চরিত্র, সততা, ন্যায়নিষ্ঠতা, সভ্যতা ও কথনের মাধুর্যতা দ্বারা স্থান করে নিয়েছেন সকলের হৃদয়ের মণিকোঠায়।অল্প বয়সেই বিশ্বাসের ‘বীজ’ বপন করেছেন সকলের অন্তরে। সকলের হৃদরাজ্যে তৈরি করেছেন ভালোবাসার মজবুত সেতু। কুড়িয়ে নেন অনেক সুনাম ও যশ-খ্যাতি। সবার কাছে হোন সমাদৃত। সর্বত্র ‘আল আমীন’ উপাধিতে হোন ভূষিত।

:

তাঁর মাঝে ছিলনা কভু ধনী গরীব কোনো তফাৎ, রাজা প্রজা সবার প্রতি প্রশস্ত ছিল তাঁর উদারতার হাত।তাঁকে দান করা হয়েছিল পৃথিবীর আদি থেকে শেষ অবধির জ্ঞান সমুদয়, তাঁর জীবন ছিল জয়ের জীবন; ছিল না কোনো পরাজয়। তিনি ছোটবেলা থেকেই ছিলেন ন্যায় নীতিবান,তিনি মাজলুমের ডাকে সাড়া দিয়ে জালিমের বিরুদ্ধে অভিযান চালাতেন।

:

নবীজন্মের পূর্বের যুগকে ঐতিহাসিকদের ভাষায় বলা হয় জাহেলী যুগ,অন্ধকার ও মূর্খতার যুগ। সে যুগেই জন্ম হয় বিশ্বনবীর।প্রকৃতপক্ষে তাঁর জন্মই ছিল সমস্ত পাপাচার ও বিভ্রান্তি আবসানের সুস্পষ্ট ইঙ্গিত।তিনি ছোট থেকেই ছিলেন সমাজের সকল পশুসুলভ আচরণের প্রতি অধিক সোচ্চার। সর্বদা সুস্থ ও উন্নত সমাজ গঠনের চিন্তায় থাকতেন ব্যতিব্যস্ত । সেই জাহেলী যুগকে সোনালি যুগে পরিবর্তন করাই ছিল তাঁর জীবনের প্রধান ব্রত।পরবর্তীতে সেই যুগকে ‘সোনালি যুগে’ পরিবর্তন করেছেনও।

:

এখন নবী নেই। আর কোনো নবী আসবেনও না। নবী আগমনের দরজা রুদ্ধ। আমরা নবীর ওয়ারিশ, উত্তরসূরি। সাম্প্রতিক যুগ নৃশংসতার দিক থেকে জাহেলী যুগের তুলনায় কম না।এমনকি সাম্প্রতিককালের অনেক নৃশংস কর্মকাণ্ড সেই বর্বরতার যুগ কেও ‘হার’ মানায়। তাই আমাদেরকে স্বপ্ন দেখতে হবে সুস্থ সমাজ গঠনের।আমাদের জীবনের প্রধান ব্রত হতে হবে সুন্দর আগামী গড়ার।আমাদের হতে হবে অনেক সোচ্চার, হুঁশিয়ার। কেননা ; আমাদেরকেই নিতে হবে আগামী পৃথিবীর ভার।

 

লেখক:- শিক্ষার্থী, দক্ষীণকাছ হুসাইনিয়া ইসলামিয়া মাদরসা, সিলেট।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
copyright 2020: ittehadtimes24.com
Theme Customized BY MD Maruf Zakir