1. admin@idealmediabd.com : Sultan Mahmud : Sultan Mahmud
  2. abutalharayhan62@gmail.com : Abu Talha Rayhan : Abu Talha Rayhan
  3. nazimmahmud262@gmail.com : Nazim Mahmud : Nazim Mahmud
  4. tufaelatik@gmail.com : Tufayel Atik : Tufayel Atik
মুরাদ: সামগ্রীক অধঃপতনের প্রতীকী চিত্র মাত্র - ইত্তেহাদ টাইমস
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:২৭ পূর্বাহ্ন

মুরাদ: সামগ্রীক অধঃপতনের প্রতীকী চিত্র মাত্র

সৈয়দ শামসুল হুদা
  • প্রকাশটাইম: সোমবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২১

ডা. মুরাদ নামের এক প্রতিমন্ত্রী তার যোগ্যতা, মেধা, চরিত্র নিজেই তার সবকিছুর আদ্যোপান্ত প্রকাশ করেছে। এ নিয়ে নতুন করে বলার আর কিছু নেই। যারা বেশি বেশি জঙ্গী, মৌলবাদি, স্বাধীনতা বিরোধী বলে চিল্লায় এদের অধিকাংশেরই চরিত্র মুরাদের মতোই পবিত্র হিসেবে দেখা গেছে। চরিত্রহীনতার শীর্ষে  অবস্থান করেও তারা প্রাউড ফিল করে। দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য, রাষ্ট্র এদেরকেই শেল্টার দেয়। এদের কথাতেই পুলিশ, র‌্যাব, ডিজিএফআই, এনএসআই নাকি চলে। তারা গর্ব করে বলে আমরাই রাষ্ট্রের সার্ভেন্ট। অন্যরা সব ভুয়া।

একের পর এক লজ্জাজনক ঘটনার জন্ম দিচ্ছে প্রশাসনের কতিপয় লোক। এর আগে একজন উৎশৃঙ্খল জীবন ‍যাপনকারী নারীকে কেন বিচারপতিরা রিমান্ড দিয়েছিল তার জন্য বিচার বিভাগের সেই বিচারপতিদের আদালতে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হয়েছিল। সেইদিন খুব অবাক হয়েছিলাম। সম্মানিত বিচারপতিদের কি এতটুকু আত্মসম্মানবোধও নেই? তারা পরিমণির কাছে ক্ষমা ভিক্ষা করে চাকুরী টিকাতে চেয়েছে। এই ঘটনাকে ছোট্ট করে দেখার সুযোগ নেই।

দেশে হাজার হাজার আলেম কারাগারে। তারা জামিনের আবেদনও করতে পারে না। তাদের কোন শুনানি করতে দেওয়া হয় না। অসংখ্য শীর্ষ আলেমদের হাতে হ্যান্ডকাপ, পায়ে ডান্ডাবেড়ি লাগিয়ে চিকিৎসা নিতে দেখা গেছে। আর সেই অসভ্য মহিলাটির হাতে হ্যান্ডকাপতো দূরের কথা, সে যখন জেল থেকে বের হয়ে এসেছিল মনে হয়েছিল সে বাসর ঘর থেকে মেহেদি হাতে রাজকীয় স্টাইলে মাথায় পাগড়ি বেধে বের হয়ে আসছে।

এতে আমাদের বিশ্বাস দৃঢ় হয়েছে যে, রাষ্ট্র ভালো মানুষের প্রতি কতটা রুঢ় এবং অসভ্যদের পক্ষে কতটা সহনশীল। ডা. মুরাদ একজন মন্ত্রী। সে প্রকাশ্যে সংবিধান বিরোধী বক্তব্য দিয়েছে। এরপর মানুষের চরিত্র নিয়ে একের পর এক উদ্ভট বক্তব্য দিয়েই যাচ্ছে। তাকে থামানোর কেউ নেই। রাষ্ট্র থেকে কেউ তাকে থামানোর চেষ্টা করেনি। অথচ ড. মুঈনুল ইসলাম এর একটি সত্যকথনকে সামনে রেখে দেশের তথাকথিত নারীবাদিরা নেরি কুত্তার মতো ঘেউ ঘেউ করে উঠেছিল। এখন তাদের রা টা পর্যন্ত নেই।

একজন মন্ত্রী যে ভাষায় একজন নায়িকাকে উভয়পথ দিয়ে রেপ করার ঘোষণা দিয়েছে তা শুনে বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের ক্ষুদ্ধ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কিছুই হবে বলে মনে হয় না। কারণ এদেশে প্রকৃত অপরাধীর এখন আর সচরাচর বিচার হয় না। ভালো মানুষদের মুখ থেকে চুন খসে পড়লেই আর রক্ষা নেই। আইন, আদালত সব হুমড়ি খেয়ে পড়ে। ভদ্রতা, সভ্যতার সকল মুখোশ যেন এখন খসে খসে পড়ছে।

বিজয়ের মাসে মনে হচ্ছে আমরা সাধারণ মানুষরা এক পরাধিন জাতি। ক্ষমতাসীনদের চাহিদা মিটানোই এদেশের সাধারণ মানুষের একমাত্র কাজ। এভাবে কতদিন চলবে? আর কতটা নৈতিক অধ:পতন ঘটলে রাষ্ট্রের শীর্ষ কর্মকর্তাদের ঘুম ভাঙ্গবে? এসব দেখে দেখে আমাদের নতুন প্রজন্ম কী শিখছে? তারা কোন পথে যাবে? কয়েকদিন আগে মহাখালি ফ্লাইওভাবে উপর মহলের তিন বেজন্মা, দুই নারী সমেত গাড়ি দুর্ঘটনার খবর প্রকাশিত হয়েছিল। এতে বুঝা যাচ্ছে যে, আসলে উপর মহলে বড় ধরণের নৈতিক অধঃপতন ঘটে গেছে। এখন এটা শুধূ উলঙ্গ হয়ে প্রকাশ হওয়া বাকী। ডা. মুরাদ সেই দুর্ঘটনারই একটা অংশ মাত্র।

সকলেই আশঙ্কা করছেন যে, এমন মুরাদ আরো অসংখ্য আছে। জানি না, তাদের কুকীর্তি কীভাবে? কী ভয়ঙ্কর রূপ নিয়ে আমাদের সামনে প্রকাশ হবে।

আল্লাহ তাআলা এইদেশটাকে হেফাজত করুন। শাসকদের প্রশ্রয়ে থাকা এসব মুরাদ মার্কা লোকদের শেষটা দেখার তৌফিক দান করুন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
ইত্তেহাদুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন-এর একটি প্রতিষ্ঠান copyright 2020: ittehadtimes24.com  
Theme Customized BY MD Maruf Zakir