1. admin@idealmediabd.com : Sultan Mahmud : Sultan Mahmud
রোবট নির্মাণ ও ব্যবহারের সীমারেখা - ইত্তেহাদ টাইমস
বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১০:০৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
মতবিরোধ পরিহার করে মুসলিমদের এক হওয়ার ডাক দিলেন এরদোগান ট্রাম্প সহিংসতা উসকে দিচ্ছেন, দায় তাকেই নিতে হবে: নির্বাচনী কর্মকর্তা দেশে করোনাভাইরাসে আরও ৩৮ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২১৯৮ বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান এবার উন্মুক্ত স্থানে নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী করোনায় দেশে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ৩১ মৃত্যু, শনাক্ত ২২৯৩ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীর রোগমুক্তি কামনায় গোয়াইনঘাট গ্রাম পুলিশের মিলাদ মাহফিল সাঈদুর রহমান লিটনের কবিতা “ফুলকি” দেশের গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় তাখাসসুসের মাদরাসা প্রতিষ্ঠা জরুরি : আল্লামা আলিমুদ্দিন দুর্লভপুরী মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করতে কঠোর হচ্ছে সরকার নাইজেরিয়ায় নামাজের সময় মসজিদে সন্ত্রাসীদের হামলা; নিহত ৫

রোবট নির্মাণ ও ব্যবহারের সীমারেখা

মাওলানা শরিফ আহমাদ
  • প্রকাশটাইম: শনিবার, ১৮ জুলাই, ২০২০

শরিফ আহমাদ

রোবট মূলত একটি যন্ত্র ৷ এই যন্ত্রটি নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই ৷ সেই মধ্যযুগ থেকেই মানুষ রোবট বানিয়ে চলছে ৷ প্রযুক্তির উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে মানুষ ও যন্ত্রের মধ্যে অনেক উন্নতি হচ্ছে ৷ বেড়ে যাচ্ছে রোবটের ব্যবহার ৷
ছোট বা বড়-নানা ধরণের প্রতিষ্ঠানে রোবটের ব্যবহার চোখে পড়ার মতো ৷ এছাড়া কর্মীরা যেসব কঠিন কাজ করতে পারছে না এমন কাজ রোবট করতে পারে অনায়াসেই ৷
আমেরিকার সবচেয়ে বড় রিটেইলার ওয়ালমার্ট মেঝে পরিষ্কার করতে রোবট ব্যবহার করছে।
দক্ষিণ কোরিয়ায় তাপমাত্রা পরিমাপ করছে রোবট দিয়ে এবং বিশ্বের অন্যান্য দেশে জটিল ও দুর্বোধ্য নানাবিধ কাজ করানো হচ্ছে রোবট দিয়ে ৷
সঙ্গত কারণে রোবট বানানো ও ব্যবহার নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে ৷ হচ্ছে অনেক গবেষণা ৷ চলছে লেখালেখি ৷ নির্মাণ হচ্ছে নাটক-সিনেমা ৷ যুগে যুগে ইসলামী স্কলারগণ যুগোপযোগী সমস্যার সমাধান দিয়েছেন ৷ দিচ্ছেন এখনো ৷ রোবট নিয়ে অনেকই মতামত ব্যক্ত করেছেন ৷ দিয়েছেন দলীল ভিত্তিক বিভিন্ন জবাব ৷ যার সারাংশ এমন—
রোবট সাধারণত একটি ইলেক্ট্রো-যান্ত্রিক ব্যবস্থার নাম ৷ যদি সেটি যন্ত্রের পর্যায়ে রাখা হয়, তাহলে তা নির্মাণে কোন সমস্যা নেই ৷
বিষয়টি আরো পরিস্কার করে বলা যায়, যদি রোবটের চেহারা তথা চোখ, কান নাক ইত্যাদির মাধ্যমে মুখের অবয়ব না দেয়া হয়, শুধুই শরীর ইত্যাদির আকৃতি প্রদান করা হয়, তাহলে তা পূর্ণ মানুষের আকৃতি পাচ্ছে না।
একটি হাদীসে প্রাণীর ছবির মাথা কেটে ফেললে তা বৈধতার পর্যায়ভূক্ত হয় বলে পরিস্কার এসেছে। সেই হিসেবে চেহারাহীন রোবটের বৈধতার অনুমতিই অনুমেয় হচ্ছে।
কিন্তু রোবট যদি মানুষের আকৃতিতে তৈরী করা হয়, অর্থাৎ রোবটের চেহারা তথা চোখ, কান নাক ইত্যাদির মাধ্যমে মুখের অবয়ব দেয়া হয়, তাহলে নিঃস্বন্দেহে তা মূর্তির আওতাধীন হয়ে হারাম হবে। আর মূর্তি যেমন তৈরি করা, ক্রয় করা, বহন করা হারাম তেমনি রোবট তৈরি করা, বহন করা, ক্রয় করা হারাম ৷
পবিত্র কোরআনে ইরশাদ হয়েছে— ‘তোমরা পরিহার কর অপবিত্র বস্তু অর্থাৎ মূর্তিসমূহ এবং পরিহার কর মিথ্যাকথন।’ (সূরা হজ : ৩০)।
এ আয়াতে পরিষ্কারভাবে সব ধরনের মূর্তি পরিত্যাগ করার এবং মূর্তিকেন্দ্রিক সব কর্মকাণ্ড বর্জন করার আদেশ দেওয়া হয়েছে।
আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ রা. বলেন, মক্কা বিজয়ের দিন যখন নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মক্কা নগরীতে প্রবেশ করলেন তখন বাইতুল্লাহর আশে পাশে তিনশ ষাটটি মূর্তি বিদ্যমান ছিল। তিনি প্রত্যেক মূর্তির দিকে হাতের লাঠি দিয়ে আঘাত করছিলেন এবং বলছিলেন:

جاء الحق وزهق الباطل، إن الباطل كان زهوقا، جاء الحق وما يبدئ الباطل وما يعيد.

সত্য এসেছে, মিথ্যা বিলুপ্ত হয়েছে। নিশ্চয়ই মিথ্যা বিলুপ্ত হওয়ারই ছিল। সত্য আগমন করেছে আর মিথ্যা না পারে কোনো কিছু সূচনা করতে, না পারে পুনরাবৃত্তি করতে। (সহীহ বুখারী হা. ২৪৭৮, ৪২৮৭, ৪৭২০; সহীহ মুসলিম হা. ১৭৮১)
আবদুল্লাহ ইবনে আববাস রা. বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বাইতুল্লাহ্য় প্রবেশ করে ইবরাহীম আ. ও মারইয়াম রা.-এর ছবি দেখলেন। তখন তিনি বললেন, এঁরা তো (যাদের চিত্র এই লোকেরা অঙ্কন করেছে) (আল্লাহর এই বিধান) শুনেছেন যে, ফেরেশতারা সে গৃহে প্রবেশ করেন না, যাতে কোনো চিত্র থাকে। (সহীহ বুখারী হা. ৩৩৫১;সহীহ ইবনে হিববান হা. ৫৮৫৮)
হাদীস শরীফে আরো বর্ণিত হয়েছে, হযরত আমর ইবনে আবাসা রা. থেকে বর্ণিত, নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, আল্লাহ তাআলা আমাকে প্রেরণ করেছেন আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখার, মূর্তিসমূহ ভেঙ্গে ফেলার এবং এক আল্লাহর ইবাদত করার ও তাঁর সঙ্গে অন্য কিছুকে শরীক না করার বিধান দিয়ে। (সহীহ মুসলিম হাদীস নং ৮৩২)
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন- যারা এই সব মূর্তি প্রস্তুত করে তাদেরকে কিয়ামতের দিন আযাবে নিক্ষেপ করা হবে। তাদেরকে বলা হবে, যা তোমরা সৃষ্টি করেছিলে তাতে প্রাণ সঞ্চার কর।
( সহীহ বুখারী হাদাস নং ৫৯৫১; সহীহ মুসলিম হাদীস নং ২১০৭)
এছাড়া আরো বহু হাদীসে মূর্তির নিষেধাজ্ঞা সম্পর্কে বর্ণিত আছে ৷ যা মূর্তি বানানো , বহন করা, ক্রয় ইত্যাদির সুস্পষ্ট হারাম হওয়া প্রমাণ করে ৷ রোবটের তাই বিধান যা মূর্তির বিধান ৷ অতএব রোবট নিয়ে মাতামাতির কিছু নেই ৷ মানব আকৃতির রোবট প্রতিটি মুসলমানের জন্য বরবাদের কারণ ৷ তাই রোবট তৈরি, বহন,ক্রয়-বিক্রয় ইত্যাদি থেকে বিরত এবং সতর্ক থাকা সময়ের অপরিহার্য দাবী ৷ মালিক হেফাজত করুন ৷ আমীন ৷

লেখক: আলেম, কবি ও আলোচক

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
copyright 2020: ittehadtimes24.com
Theme Customized BY MD Maruf Zakir