1. admin@idealmediabd.com : Sultan Mahmud : Sultan Mahmud
  2. abutalharayhan62@gmail.com : Abu Talha Rayhan : Abu Talha Rayhan
  3. nazimmahmud262@gmail.com : Nazim Mahmud : Nazim Mahmud
  4. tufaelatik@gmail.com : Tufayel Atik : Tufayel Atik
হিজড়াদের দৌরাত্ম্য-চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ সিলেটবাসী - ইত্তেহাদ টাইমস
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
গোয়াইনঘাটে সহকারী শিক্ষক সমিতির সেক্রেটারী আতাউর রহমান’র ইন্তেকাল উত্তরাঞ্চলে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে আরো কয়েক দিন ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে অমর একুশে বইমেলা চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বৃদ্ধির দাবিতে নীলক্ষেত অবরোধ নতুন বছরের প্রথম সংসদ অধিবেশন বসছে আজ রংপুরকে ইয়েলো জোন (মধ্যম ঝুঁকিপূর্ণ) ঘোষণা করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর নাসিক নির্বাচনে ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে: মেয়র প্রার্থী তৈমূর খন্দকার শীতের ঠাণ্ডা কী শুধুই অপকারী: না- শরীরের উপকারীও বটে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ৪ জনের মৃত্যু, শনাক্তের হার ১১ দশমিক ৬৮ শতাংশ বুস্টার ডোজে টিকার পরিবর্তন, ফাইজার বদলে দেওয়া হবে মডার্না

হিজড়াদের দৌরাত্ম্য-চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ সিলেটবাসী

টাইমস ডেস্ক
  • প্রকাশটাইম: বুধবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২১
প্রতীকী ছবি

হিজড়াদের দৌরাত্ম্য- চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ সিলেটবাসী। নগরীসহ শহতলির বিভিন্ন রাস্তা ও মোড়ে পুলিশের সামনে তারা বিয়ের গাড়িবহর আটকে এবং দোকানে দোকানে এমন দৌরাত্ম্য চালালেও কোনো ভূমিকা নিচ্ছে না পুলিশ।

বিভিন্ন রাস্তা এবং মোড় ছাড়াও সিলেটের দোকানে দোকানে চাঁদাবাজি করে বেড়ায় হিজড়ার দল। তাদের চাহিদা অনুযায়ী টাকা না দিলে চড়াও হয় ব্যবসায়ীদের উপর। এতে চক্ষুলজ্জার কারণে সাধ্যের বাইরে হলেও হিজড়াদের চাহিদামতো চাঁদা দিয়ে বিদায় করেন ব্যবসায়ীরা। অনেক সময় হিজড়াদের হাতে অনেকেরই লাঞ্ছিত হওয়ার খবর পাওয়া যায়।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কিছুটা কমে আসার পর গত কয়েক মাস ধরে নগরীসহ সিলেটের বিভিন্ন রাস্তা ও মোড়ে ৪-৫ জন করে হিজড়াদের একেকটি দল দিনভর দাঁড়িয়ে থেকে চাঁদাবাজি করছে। নগরীর হুমায়ুন রশিদ চত্বর, মেন্দিবাগ পয়েন্ট, নাইওরপুল পয়েন্ট, দক্ষিণ সুরমার তেতলি এলাকার সুনামগঞ্জমুখি বাইপাসের মুখ ও তেলিবাজার, সিলেট-বিয়ানীবাজার সড়কের পারাইরচকস্থ বাইপাসের মুখসহ প্রায় সকল গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও মোড়ে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত হিজড়ারা ৪-৫ জন করে দাঁড়িয়ে থাকে। কোনো বিয়ের গাড়িবহর আসলেই সামনে দাঁড়িয়ে যায় তারা। হাজার-পাঁচ শ নয়, ৪-৫ হাজার টাকার কম তারা রাস্তা ছাড়ে না গাড়িবহরের।

এভাবেই গত কয়েকদিন আগে এক শুক্রবারে জুমআর নামাজের ঠিক পরবর্তী সময়ে নগরীর নাইওরপুল পয়েন্টে একটি বিয়ের গাড়িবহর আটকায় ৭-৮ জন হিজড়া। তারা এসময় বরের গাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে হাত তালি দিয়ে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করে ১০ হাজার টাকা দাবি করে। এসময় বরযাত্রীদের মধ্য থেকে এক যুবক তাদের টাকা দিতে অসম্মতি জানালে সেই যুবকের উপর চড়াও হয় হিজড়ারা। এসময় তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার চেষ্টা করে তারা। পরে বরপক্ষের এক মুরুব্বি হিজড়াদের ৪ হাজার টাকা দিয়ে এ যাত্রা রেহাই পান।

ঠিক এসময় নাইওরপুল পয়েন্টে ট্রাফিকসহ এসএমপি’র অন্তত ৩ জন পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করছিলেন। তাদের চোখের সামনেই হিজাড়ারা এমন উৎপাত করলেও তারা ছিলেন দর্শকের ভূমিকায়। পরে জনৈক সাংবাদিক মোবাইল ফোন বের করে ছবি তুলতে গেলে পুলিশ সদস্যরা হিজড়াদের রাস্তার পাশে সরিয়ে দেন।

শুধু বাস-ট্রেন-লঞ্চ নয়; বরং বাসা, দোকান, ব্যবসা কেন্দ্র সর্বত্রই তাদের উৎপাত লক্ষ করা যায়। বিনোদন কেন্দ্রগুলো, যেখানে সাধারণ মানুষ যায় নির্মল আনন্দ লাভের জন্য; সেখানেও চলে তাদের চাঁদাবাজি। চাঁদা দিতে গড়িমসি করলেই হয়রানি ও নাজেহাল হতে হয়। বিশেষ করে, সিলেট নগরী ও শহরতলির গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট এবং রাস্তাগুলোতে এমন দৃশ্য নিত্যদিনের।

এ ছাড়া কোথাও কোনো বিয়ের অনুষ্ঠান, বাচ্চার জন্ম, কারও জন্মদিনের অনুষ্ঠান কিংবা যে কোনো পারিবারিক উৎসবে তাদের হানা দেওয়াটা যেন রুটিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিভিন্ন শপিংমল ও মার্কেট থেকে শুরু করে ফুটপাত পর্যন্ত তাদের চাঁদাবাজি চলে।

সিলেটে হিজড়ারা বিভিন্ন স্থানে পুলিশের সামনে এসব করলেও পুলিশ কোনো ভূমিকা নেয় না বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ। অভিযোগের সত্যতাও বিভিন্ন সময় পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের (এসএমপি) অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) বি এম আশরাফ উল্যাহ তাহের সিলেটভিউ-কে বলেন, ‘গত বছর করোনা সংক্রমণের আগে এভাবে তাদের উৎপাত বেড়ে গিয়েছিলো। পরে তাদের নিয়ে কাজ করে এমন কয়েকটি সংস্থার নেতৃবৃন্দ ও তাদের মধ্য থেকে কয়েকজন প্রতিনিধির সঙ্গে এসএমপি কমিশনার স্যার বৈঠক করেন। হিজড়াদের উৎপাত বন্ধ করতে ওই সময় তাদের কঠোর নির্দেশ প্রদান করা হয়। পরে করোনার সংক্রমণ বেড়ে গেলে তারাও আর রাস্তায় বের হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘এখন যদি আবারও তাদের উৎপাত বেড়ে যায় তবে ওদের নিয়ে আবারও বৈঠকের ব্যবস্থা করা হবে।’

এক প্রশ্নের জবাবে বি এম আশরাফ উল্যাহ তাহের বলেন, ‘পুলিশের সামনে হিজড়াদের উৎপাতের বিষয়টি আমাদের জানা নেই। তবে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
ইত্তেহাদুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন-এর একটি প্রতিষ্ঠান copyright 2020: ittehadtimes24.com  
Theme Customized BY MD Maruf Zakir